News Bangla

যারা হামলা চালিয়েছে তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে: হুঁশিয়ারি প্রধানমন্ত্রীর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জড়িতদের উদ্দেশে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কুমিল্লার ঘটনার তদন্ত চলছে। এই ঘটনার পেছনে যারাই জড়িত থাকুক তাদের খুঁজে বের করা হবে। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) ঢাকেশ্বরী মন্দিরে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি আয়োজিত শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমীর অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কুমিল্লার ঘটনার তদন্ত হচ্ছে, আমরা অনেক তথ্য পাচ্ছি। এখন ডিজিটাল যুগ। জড়িত যারাই হোক, আর যেই ধর্মেরই হোক না কেন, আমরা তাদের খুঁজে বের করবোই। তিনি আরও বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উৎসবে হামলা যারাই করে থাকুক তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। তাদের এমন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে যেন এই ঘটনা আর কেউ কখনো ঘটানোর সাহস না করে।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে কুমিল্লাসহ দেশের কয়েকটি স্থানে যারা হামলা চালিয়েছে তাদের শাস্তির আওতায় আনা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে ভারতের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সব বিষয়ে ভারতকেও বাংলাদেশের সহযোগিতা করতে হবে। সেখানে এমন কোনো ঘটনা যেন না ঘটে, যার প্রভাব বাংলাদেশেও পড়ে।

২০০৮ সালের আগে সারা দেশে ১০ হাজার পূজা মন্ডপে দুর্গাপূজা হতো। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তা বাড়তে থাকে। এ বছর ৩২ হাজারের বেশি মন্ডপে পূজা হচ্ছে। স্থায়ী মন্ডপগুলোতে আইন শৃংঙ্খলা বাহিনী যথেষ্ট মোতায়েন থাকে। তাই অস্থায়ী পূজামণ্ডপের সংখ্যা কমিয়ে রাখার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে সনাতন ধর্মের প্রতিনিধিরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে সংখ্যালঘু কমিশন ও মন্ত্রনালয় গঠনের দাবি জানান। তারা বলেন, মন্দিরে হামলাকারীদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। যেন ভবিষ্যতে কেউ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি নষ্টের সাহস না পায়। সূত্র-একাত্তর টিভি।