News Bangla

পরীমনি জামিন পেলেন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনির মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে তার জামিন মঞ্জুর করেন।

রোববার (২৯ আগস্ট) উচ্চ আদালতের নির্দেশে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ পরীমনির জামিন শুনানির জন্য ৩১ আগস্ট দিন ধার্য করেন।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে গত ২২ আগস্ট  পরীমনির জামিন আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবী মজিবুর রহমান। তখন আদালত শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছিলেন। পরে তার আইনজীবীরা এ নিয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন।

গত ৪ আগস্ট সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পরীমনিকে তার বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

ওইদিনই রাত ৮টা ১০ মিনিটে পরীমনিকে একটি সাদা মাইক্রোবাসে র‌্যাব সদরদফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে রাত ১২টা পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে র‌্যাব। পরদিন ৫ আগস্ট বিকেল ৫টা ১২ মিনিটে পরীমনি, চলচ্চিত্র প্রযোজক রাজ ও তাদের দুই সহযোগীকে কালো একটি মাইক্রোবাসে বনানী থানার উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়।

এরপর র‌্যাব বাদী হয়ে রাজধানীর বনানী থানায় পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে।

তারপর তাকে আদালতে হাজির করলে প্রথমে চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। পরে আরও দুই দফায় তাকে রিমান্ডে নেয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মাদকসেবন করতেন। এমনকি এলএসডি ও আইসও সেবন করতেন তিনি। এজন্য বাসায় একটি ‘মিনিবার’ তৈরি করেন। বাসায় নিয়মিত ‘মদের পার্টি’ করতেন। চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকের সরবরাহ করতেন ও পার্টিতে অংশ নিতেন।

২০১৪ সালে সিনেমায় ক্যারিয়ার শুরু করা পরীমনি এ পর্যন্ত ৩০টি সিনেমা ও বেশ কয়েকটি টিভিসিতে অভিনয় করেছেন। পিরোজপুরের মেয়ে পরীমনিকে চলচ্চিত্র জগতে নিয়ে আসেন প্রযোজক রাজ।

শারীরিক অসুস্থতাসহ চিত্রনায়িকা পরীমণি কয়েকবার রিমান্ডে ও ২৬ দিন ধরে কারাগারে থাকায় তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন বলে আদালতকে জানান পরীমণির আইনজীবী মুজিবুর রহমান।

সাংবাদিকদের মুজিবুর রহমান বলেন, আমরা আদালতকে বলেছি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ধারায় পরীমণি প্রিভিলেজ পাবে। আসামি চিত্রনায়িকা পরীমণি একজন নারী। তার মান-সম্মান রয়েছে, এছাড়া তার বেশ কয়েকটি সিনেমা নির্মাণ-প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। পরিচালকদের সাথে কনট্রাক্ট রয়েছে। সিডিউল ফেঁসে যাচ্ছে। এ মামলার তথ্যগত কোনও প্রমাণ এখন পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে আসেনি।

দেশে আইনের শাসন রয়েছে। আদালতের ওপর আস্থা রাখতে হবে। তার বিরুদ্ধে আইস এলএসডি উদ্ধারের মামলাও রয়েছে। জামিন শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের রুল পাওয়ায় নিম্ন আদালত পদক্ষেপ নিয়েছে। সে কারণেই আজ জামিন মঞ্জুর হয়েছে। সূত্র-বাংলা ট্রিবিউন ও জাগো নিউজ।