News Bangla

চুকনগর গণহত্যা দিবস পালিত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পরেশ দেবনাথ। চুকনগর গণহত্যা-৭১ স্মৃতিরক্ষা পরিষদের উদ্যোগে ও চুকনগর কলেজের সার্বিক সহযোগিতায় চুকনগর বধ্যভূমি চত্তরের স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়েছে।

দেশের সর্ববৃহৎ চুকনগর গণহত্যা ৭১ স্মৃতিরক্ষা পরিষদের সভাপতি এবিএম শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং চুকনগর কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মণিরুল ইসলাম ব্রাউনের সঞ্চালনায় এক মিনিট নিরবতা শেষে চুকনগর গণহত্যার ৫০ বছর পূ্র্তিতে চুকনগর বধ্যভূমিতে পুষ্পস্তবক অর্পন ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায় চুকনগর গণহত্যা- ৭১আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, ডুমুরিয়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যুবউন্নয়ন কর্মকর্তা মো: কামরুজ্জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম মহিউদ্দীন, আটলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভেোকেট প্রতাপ কুমার রায়, তালা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কলেজের অধ্যক্ষ এনামুল ইসলাম, অধ্যাপক হাশেম আলী ফকির, কবি ও সাংবাদিক ইব্রাহিম রেজা, অধ্যাপক হাফিজ মাহমুদ, কল্যাণ কান্তি হালদার, আনন্দ সরদার, অশোক রায, বিপ্লব ঘোষ, মোঃ মাসুদ, নাজমুল ইসলাম বাবু, আক্তারুজ্জামান সোহাগ প্রমুখ।

এসময এ বি এম শফিকুল ইসলাম বলেন চুকনগর বধ্যভূমি কমপ্লেক্স নির্মানে ইতিমধ্যে সরকারি ভাবে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এ প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে জমি অধিগ্রহণ কমপ্লেক্স ডিজাইন ও উন্নয়ন প্রকল্পের পি,পি এর কাজ চলমান রয়েছে।

উল্যেখো ১৯৭১ সালের ২০ই মে এই দিনে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম ’চুকনগর গণহত্যা’ সংগঠিত হয়। ভারতে গমনরত প্রায় দশ হাজার শরণার্থীদের উপর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী গুলি চালালে এই গণহত্যা ঘটে। গণহত্যায় নিহত অধিকাংশই খুলনা জেলার ডুমুরিয়া ও বটিয়াঘাটার অধিবাসী। বাগেরহাট ও পাশ্ববর্তী কয়েকটি জেলার কিছু অধিবাসীও এখানে গণহত্যার শিকার হন। উক্ত গণহত্যাটি অন্তত এক বর্গকিলোমিটার এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে ঘটে। পাতোখোলার বিল পুটিমারি বিল, ভদ্রা নদী, গ্রামের কিছু পুকুর, চুকনগর বাজার, বাজারের কালী মন্দির প্রভৃতি স্থানে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনি গুলি চালায়। ৩-৪ ঘণ্টা ধরে পাকিস্তানি হানাদার সেনারা গুলি চালায়। গণহত্যায় নিহতের আনুমানিক সংখ্যা ১০/১২ হাজার। নিহতদের লাশ অপসারণকারী চুক-নগরের কিছু অধিবাসী প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনা দিয়েছেন। তারা ৪,০০০ -এরও বেশি লাশ গুনেছিলেন বলে দাবি করেন। এই গণহত্যায় নিহত দুই শতাধিক ব্যক্তির নাম-পরিচয় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে জানাযায। কোভিড-১৯ এর কারণে অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত আকারে করা হয় বলে কমিটি সূত্রে প্রকাশ।