News Bangla

চুকনগরে নতুন ইঞ্জিন ভ্যান পেল আব্দুল্লাহ

পরেশ দেবনাথ, ডুমুরিয়য়া উপজেলার চুকনগর বাজারে গত ১৯ মে সকালে সাতক্ষীরা জেলা তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়নের হাজরাকাটি গ্রামের বাবু সরদারের ছেলে আব্দুল্লাহ সরদার (১৪) এর ভ্যান চুরির ঘটনা ঘটে। অভাব-অনটনের সংসারে রোজগারের একমাত্র সম্বল ছিল একটি ব্যাটারিচালিত ইঞ্জিন ভ্যান। সেটি চুকনগর বাজার থেকে চুরি করে নিয়ে যায় দুই প্রতারক।

চুকনগর বাজারে রাস্তায় বুকফাটা কান্নায় ভেঙে পড়ে কিশোর আব্দুল্লাহ। কিশোরের কান্না শুনে হৃদয় ছুঁয়ে যায় সাধারণ মানুষের। আব্দুল্লাহকে একটি নতুন ইঞ্জিন ভ্যান কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন চুকনগরের স্হানীয় কয়েকজন সাংবাদিক। অবশেষে গতকাল শনিবার (৫ জুন) রাতে আব্দুল্লাহ্ ও তার বাবা বাবু সরদারের হাতে একটি নতুন ভ্যান তুলে দেয়া হয়েছে।

আব্দুল্লাহর কান্না ফেসবুকে দেখার পর আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলেন অনেকেই। স্হানীয় সাংবাদিকরা আলাপ-আলোচনা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামসহ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় বিষয়টি প্রকাশিত হয়। যার ফলে বিষয়টি সর্বসাধারণের নজরে আসে এবং স্হানীয় সাংবাদিকরা আব্দুল্লাহ’র জন্য একটি নতুন ভ্যান কিনে দেবার সিদ্ধান্ত নেন।

ফেইজবুকে মানবিক এ কাজে অনেকেই সাড়া দেন এবং বেশ কিছু টাকা তাৎক্ষণিকভাবে জোগাড়ও হয়ে যায়। তখন আব্দুল্লাহ ও তার বাবাকে একটি নতুন ইঞ্জিন ভ্যান কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তির প্রতিশ্রুতি অনুয়ায়ী ভ্যানটি তাদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

আব্দুল্লাহকে ভ্যান না চালিয়ে স্কুলে পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। ৪৫ হাজার টাকার ভ্যানটি ক্রয়ের জন্য সার্বিক সহযোগিতা করেছেন সাংবাদিকসহ অনেক দানশীল ব্যাক্তিরা। এ বিষয়ে চুকনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি রুহুল আমিনের যথেষ্ঠ ভূমিকা ছিল।

উল্লেখ্য, ১৯ মে সকালে ভাড়া নিয়ে তালা থেকে চুকনগর বাজারে যাওয়ার পর দুইজন মানুষ এসে আব্দুল্লাহকে বলে তারা দুইটি টেলিভিশন কিনে তালা বাজারে যাবে। একশ’ টাকা ভাড়ার চুক্তি করে। এরপর দুই প্রতারক দুটো বস্তা কিনতে পাঠিয়ে ভ্যানটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

ভ্যানটি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক জাগো প্রতিদিনের খুলনা জেলা প্রতিনিধি মোঃ আক্তারুজ্জামান লিটন, দৈনিক যশোর পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার কোমল রাহা, রণজিৎ দেব, ডাঃ পার্থ, মোল্যা মাহাবুর রহমান প্রমুখ। নতুন ভ্যান পাওয়ার পর বাবু সরদার জানান, ভ্যানটি চুরি হয়ে গেলে নতুন আরেকটি ভ্যান পাব সেটি আমি স্বপ্নেও কল্পনা করতে পারনি। সাংবাদিকসহ যারা আমার জন্য কঠোর পরিশ্রম এবং মানবতার পরিচয় দিয়েছেন তাদের আমি প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাচ্ছি। সকলের সুখ-শান্তি কামনা করি। সর্বশেষ আমার ছেলের মত যেন কেউ বিপদে না পড়ে।ডুমুরিয়ার চুকনগরের সাংবাদিকবৃন্দসহ দানশীল ব্যাক্তিরা আব্দুল্লাহকে নতুন ইঞ্জিন ভ্যান কিনে দিয়ে মানবতার পরিচয় দিলেন।