News Bangla

ইজিবাইকে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ (ভিডিও)

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ : কেশবপুরে ইজিবাইক মালিকদের জিম্মি করে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ বিক্ষোভ হয়। চাঁদাবাজির বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে ইজিবাইক মালিকরা।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের কথিত শ্রমিক নেতা মিজানুর রহমান ও ভোগতি গ্রামের ফিরোজ হোসেন দীর্ঘদিন ধরে সরকারদলীয় নেতা পৌর এলাকার একজন নির্বাচিত প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধির নাম ভাঙ্গিয়ে হাজরাকাটি বেলতলা টু কেশবপুর রুটের প্রায় ২৫ জন ইজিবাইক চালককে জিম্মি করে প্রতি মাসে ৪০০ টাকা হারে চাঁদা আদায় করে আসছে। এছাড়াও ওই রুটে নতুন ইজিবাইক ভাড়া খাটতে কেশবপুরে প্রবেশ করলে প্রত্যেককে ভর্তি ফি বাবদ ৫ হাজার টাকা করে এককালীন চাঁদা দিয়ে রোডে চালানোর অনুমতি নিতে হয়।

কোন কারণে কেউ তা দিতে দেরি বা অপারগতা প্রকাশ করলে মারপিট বাইকে তালা লাগিয়ে দেয়াসহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হয়। সম্প্রতি ইজিবাইক চালক সমিতি গঠন হওয়ায় তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে চাঁদার পরিমাণ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। যার ফলে চালকদের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। মিজান ও ফিরোজের চাঁদাবাজি ও নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেতে ইজিবাইক চালক সমিতির সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ ১৫ জন চালক স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দফতরে দেয়া হয়। এসময় চালকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে উল্লেখিত চাঁদাবাজদের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইজিবাইক চালক সমিতির সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লব, ইজিবাইক চালক হাফিজুর রহমান, মিজানুর রহমান, মুনজুর রহমান, সেলিম রেজা, আতাউর রহমান, ইয়াকুব আলী, আব্দুস সালাম, আব্দুর রহিম প্রমুখ।

ইজিবাইক মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লব জানান, বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা ও পৌর এলাকার একজন জনপ্রতিনিধির নাম করে তাদের কাছ থেকে মিজানুর রহমান ও ফিরোজ জোরপূর্বক মাসিক ৫ হাজার করে চাঁদার টাকা আদায় করে। টাকা দিতে না পারলে তাদের মারপিট ও নানা রকম হুমকি দেয়া হয়।

তিনি জানান, চাঁদা না দেয়ায় ইজিবাইক চালক রুহুল আমিন ও মুনছুর রহমানকে মারপিট করে চাঁদাবাজরা। ভয়ে তারা মনিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি দেখা হবে। চালকরা যাতে নির্বিঘ্নে ইজিবাইক চালাতে পারে তার জন্য সকল ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও ঘটনা সঠিক হলে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য থানার অফিসার ইনচার্জকে অনুরোধক্রমে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।