News Bangla

ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ বরকে জরিমানা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আ.শ.ম. এহসানুল হোসেন তাইফুর। কেশবপুরে এক কলেজছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন। এ সময় বাল্যবিয়ে করতে আসার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বরকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রবিবার রাতে উপজেলার হাড়িয়াঘোপ গ্রামে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম এম আরাফাত হোসেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, রবিবার রাতে উপজেলার বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়নের হাড়িয়াঘোপ গ্রামে ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী পাইকগাছা উপজেলার কপিলমনি গ্রামের বর উত্তম দত্তের সাথে বাল্যবিয়ের আয়োজন করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম আরাফাত হোসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিয়ে করতে আসার অপরাধে বর উত্তম দত্তকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও কনের বাবার কাছ থেকে মেয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা নিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন।

এছাড়া সোমবার দুপুরে কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত বিধি নিষেধ অমান্য করে মাস্ক ব্যবহার না করার অপরাধে ব্যবসায়ী মানিককে ২০০ টাকা, সুধীর মজুমদারকে ২০০ টাকা, তপন দেবনাথকে ২০০ টাকা, মোকবুল হোসেনকে ২০০ টাকা ও পথচারী তন্ময় মন্ডলকে ২০০ টাকা এবং নূর ইসলামকে ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়। সর্বমোট ৬ টি মামলার বিপরীতে এক হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়।